খানপুরে হাসপাতালে র‌্যাবের জালে ১৯ দালাল, মুচলেকায় মুক্তি ১০ কারাদন্ড ৯

নারায়ণগঞ্জের খানপুর ৩শ শয্যা হাসপাতালে ৯ দালালকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাবে-১১ এর একটি অভিযানিক দল। বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) সকাল সাড়ে ১১টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টায় পর্যন্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মৌসুমি মান্নান ও নেজারত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শেখ মেজবাহ-উল-সাবেরিন এর নেতৃত্বে চলে এ অভিযান।

এ সময় বিভিন্ন ডায়াগনিষ্টিক সেন্টারের ১০ জন দালালদেরকেও আটক করা হয়। পরে তাদের বিরুদ্ধে কাগজপত্রে কোন অপরাধ সংশ্লিষ্ট না পাওয়ায় মুচলেকা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়। আর বাকি ৯ জনকে ৭ দিনের বিনাশ্রম বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়। কারাদন্ড প্রাপ্তরা হলো, মৃত আব্দুল লতিবের ছেলে দুলাল হোসেন, মঞ্জুরুল ইসলাম (৩৫), আব্দুল খালেকের ছেলে ফরিদ (৩০), নুরুসলামের ছেলে আব্দুল খালেক (৩০), মৃত:  সামসুল আলমের ছেলে রিপন(৩৪), মৃত: লালু মুন্সির ছেলে ইব্রাহীম (৩৫), মৃত:  হাকিম বেপারীর ছেলে বাদল মিয়া (৫০), হারুন অর রশিদের ছেলে আব্বাস উদ্দীন (২৭) ও রাসেল খানের স্ত্রী মাকসুদা বেগম (২২)।

সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবে-১১ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক  মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, খানপুর হাসপাতালের দালালদের বিরুদ্ধে আমাদের কাছে নারায়নগঞ্জবাসীর অনেক দিন যাবৎ অভিযোগ আসছে। হাসপাতালে আমাদের  র‌্যাবের  কিছু সদস্য সিভিলে ডিউটি করছে এবং ভিডিও ফুটেজ দেখে আমরা সন্দেহাতীত ১৯ জনকে আটক করি। আমরা ৪ জন সহ আরো ৬ জন ডাক্তারের সহযোগীতা নিয়ে ১৯ জনকে দুই দলে ১০ ও ৯ জনে ভাগ করে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করে ১০ জনের আমাদের কাছে দলিল ও কাগজপত্রে অপরাধ প্রমানিত না হওয়ায় বিনা কারনে হাসপাতালে ঘোরাঘুরি না করার মুচলেকা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে এবং বাকি ৯ জন অপরাধ প্রমানিত হওয়ায় ও তারা নিজেরা স্বীকার করেছে তারা বিভিন্ন ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে আসে তাই তাদের ৭ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে। আমাদের কাছে খানপুর হাসপাতালের পাশাপাশি ভিক্টোরিয়া হাসপাতালের বিরুদ্ধেও অভিযোগ আছে ওই হাসপাতালেও আমরা খুব শীঘ্রই এই হাসপাতালের মত অভিযান চালাবো।

খানপুর হাসপাতালের আশেপাশে ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও হাসপাতালের নিরাপত্তার বিষয় তিনি আরো বলেন, আমরা খুব শীঘ্রই হাসপাতালের আশেপাশে ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলোতে অভিযান চালাবো। হাসপাতালের মাদকসেবীদের উৎপাত বেড়ে গেয়েছে এই অভিযোগ পেয়ে আমি দুইবার হাসপাতালে প্রদর্শনে এসেছি এবং মাদকসেবীদের বিরুদ্ধে আমরা ব্যবস্থা নিবো।

সংবাদ সম্মেলনে ৩০০শয্যা বিশিষ্ট খানপুর হাসপাতালের আবাসিক ডাক্তার (আরপি) ড.সামসুজ্জোহা সঞ্জয় বলেন, নারায়নগঞ্জবাসীর এই হাসপাতালের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগের ভিত্তিতেই আজকের এই অভিযান। হাসপাতালের বিরুদ্ধে যেকোন ধরনের সমস্যা হলে আপনারা আমাদের অভিযোগ জানাবেন র‌্যাব ও পুলিশ আছে তাদের মাধ্যমে আমরা ব্যবস্থা নিবো আজকের এই অভিযানে প্রমানিত হয়েছে আপনাদের যেকোন সমস্যায় হাসপাতাল কতৃপক্ষ ব্যবস্থা নিতে প্রস্তুত।


Tags: No tags

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *