প্রচ্ছদ আর্ন্তজাতিক মিয়ানমারে নির্যাতনে জড়িতদের বিচারের মুখোমুখি করা উচিৎ

মিয়ানমারে নির্যাতনে জড়িতদের বিচারের মুখোমুখি করা উচিৎ

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের সংখ্যালঘু মুসলিম রোহিঙ্গাদের ওপর বর্বর নির্যাতনের প্রতিবাদে দেশটির চার শীর্ষ সেনা কর্মকর্তার ওপর যুক্তরাষ্ট্র যে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে তা যথেষ্ট নয় বলে মনে করে জাতিসংঘ।সংস্থাটির বিশেষ দূত ইয়াংহি লি বৃহস্পতিবার মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন।

ইয়াংহি লি বলেন, সেনাপ্রধান মিন অং হ্লালাইং, উপ-সেনা প্রধান সোয়ে উইন এবং ব্রিগেডিয়ার জেনারেল থান এবং অং অং ছাড়াও রোহিঙ্গা নিপীড়ন বিষয়ে ২০১৮ সালে প্রকাশিত জাতিসংঘের তদন্ত প্রতিবেদনে অন্য যে দুইজন সেনা কর্মকর্তার নাম এসেছে তাদের সবাইকে গণহত্যার অভিযোগে বিচারের মুখোমুখি করা উচিত।

প্রসঙ্গত, চলতি সপ্তাহে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর প্রধান মিন অং হ্লালাইং এবং আরো তিন শীর্ষ সেনা কর্মকর্তা ও তাদের পরিবারের সদস্যদের যুক্তরাষ্ট্র প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে ওয়াশিংটন।

২০১৭ সালে রোহিঙ্গাদের ওপর মিয়ানমার সেনাবাহিনীর চালানো নৃশংসতার বিরুদ্ধে এটাই এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে কঠোর পদক্ষেপ।

ইতিহাসের জঘন্যতম ওই নৃশংসতার শিকার হয়েছে কয়েক হাজার রোহিঙ্গা প্রাণ হারিয়েছেন। আহত হয়েছেন কয়েক লাখ। আর জীবন বাঁচাতে নাফ নদী পাড়ি দিয়ে ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করেছেন। (নিউজ ডেক্স)

মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় আটক তিতাসের ৮ জনের ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর

দ্যা বাংলা এক্সপ্রেস ডটকমঃ তল্লায় মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় পুলিশের করা মামলায় গ্রেপ্তার তিতাসের আট কর্মকর্তা-কর্মচারীকে দুই দিন করে রিমান্ডে দিয়েছেন আদালত।
error: Content is protected !!