Wednesday, September 30, 2020
প্রচ্ছদ ধর্ম মুসলিমদের সাথে অবৈধ লড়াই করে কে ই বা পেরেছে ? আর কে...

মুসলিমদের সাথে অবৈধ লড়াই করে কে ই বা পেরেছে ? আর কে ই বা পারবে ?

একদিন মুসলিমদেরই হবে চীর বিজয়, পবিত্র আল কোরআন যার বাস্তব স্বাক্ষী কয়।

মাহমুদ হাসান কচি: বিশ্ববাসীর কাছে  ইসলাম ধর্মকে সহ এই ধর্মের মানুষদের খাটো করার প্রয়াশে ইসলাম বিদ্বেষীরা যুগে যুগে কোটি কোটি ট্রিলিয়ন টাকা ব্যায় করে চলছেই। তাদের অব্যাহত প্রচেষ্টার বাস্তব প্রমানই হচ্ছে বিশ্ব ব্যাপী বিরাজমান মুসলমানদের উপর নির্যাতন নিপিড়নের চিত্র।

ইসলাম বিদ্বেষীরা পবিত্র ইসলাম ধর্ম সহ এই ধর্মের লোকদের খাটো করার প্রয়াসে সেই নবী রাসুলদের আমল থেকে যে ভাবে তৎপর ছিলো,নবী রাসুলরা এই পৃথিবী থেকে বিদায়ই নেয়ার পরও অব্যাহত রেখেছে তারা তাদের সেই অপতৎপরতা। তবে যুগ ও কালের পরিবর্তনের সাথে সাথে ইসলাম বিদ্বেষী অপতৎপরাতার ধরনও পাল্টে গেছে।

পৃথিবী যতোই আধুনিকায়ন হচ্ছে সেই আধুনিকতার সাথে তাল মিলিয়ে ইসলাম বিদ্বেষীরা  আধুনিক কৌশল অবলম্বন করেছে ।

পবিত্র ইসলাম ধর্ম সহ এই ধর্মের লোকদের খাটো করার জন্য সহ উপর মুসলমানদের উপর নির্যাতন – নিপীড়ন চালিয়ে নিঃশ্বেষ করার জন্য ইসলাম বিদ্বেষী ইহুদী,নাসারারা সহ সনাতন ধর্মের লোকেরা তাদের আধুনিক কৌশল ও হাতিয়ার হিসেবে বেঁছে নিয়েছে চলচিত্রকে।

ইসলাম ধর্মের শত্রুরা এই চলচিত্র খাতে হাজার হাজার ট্রিলিয়ন ডলার ব্যায় করে এমনই একেকটি ছবি নির্মাণ করে বিশ্ব বাজারে এ্যাকশন মুভি হিসেবে বিশ্ব বাজারে প্রকাশ করছে যা দেখলেই যে কোন মানুষ খুব সহজেই বুঝতে পারবে ইসলাম ধর্মের লোকেরা খুবই হিং¯্র, খারাপ ও পাষন্ড অমানুষ আর ইসলাম বিদ্বেষীরাই হচ্ছে প্রকৃত মানুষ । বিশ্বে শান্তি প্রতিষ্ঠা সহ বিশ্ববাসীর জান মালের নিরাপত্তার অতন্ত্রপ্রহরী হিসেবে শুধু তারাই কাজ করছে।

ছবি গুলোতে পবিত্র ইসলাম ধর্ম সহ এই ধর্মের শান্তিপ্রিয় মুসলমানদের এমনভাবে উপস্থাপন করেছে যে, গোটা পৃথিবীতে সকল অশান্তির মূল ভূমিকারই  রয়েছে ইসলাম ধর্মের মুসলিমরা। শুধু ইসলাম ধর্মের মুসলমানরাই জঙ্গী তৎপরতা , সন্ত্রাসী কার্যক্রম ও উগ্রতা চালিয়ে শান্তিপ্রিয় বিশ্ব বাসীর মূল অশান্তির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ইসলাম বিদ্বেষীদের এসব অপপ্রচারের মূল উদ্দেশ্যই হচ্ছে,ছবিগুলো দেখে যাতে বিশ্বের শান্তিপ্রিয় মানুষদের মনে ইসলাম ধর্ম ও এই ধর্মের মানুষদের প্রতি ক্ষোভ ও ঘৃণা জন্মাক আর এই ইস্যু তৈরী করে, অপবাদদিয়ে বিশ্বের বিভিন্নদেশে বসবাসকারী মানুষদের উপর দমন,পীড়ন ও নির্যাতনের মাধ্যমে ইসলাম ধর্ম সহ এই ধর্মের মানুষদের ধ্বংষ করার।

হ্যাঁ উল্লেখিত বিষয়টি বাস্তব প্রমান হচ্ছে ইষধপশ ঐধশি উড়হি নামের ইংরেজী ছবিটি সহ একাধিক চলচিত্র যা নির্মাণ করতে আমাদের বাংলাদেশের টাকায় কয়েক হাজার কোটি টাকা খরচ হয়েছে।

এধরনের চলচিত্র গুলোতে দেখানো হচ্ছে ইসলামীক রাষ্ট্রগুলোর মুসলিমরা জঙ্গী তৎপরতা ও সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালিয়ে শান্তি প্রিয় বিশ্ববাসীর অশান্তি সৃষ্টি করছে আর শান্তি প্রিয় বিশ্ববাসীর শান্তি প্রতিষ্ঠার অগ্রদূত হয়ে  ইসলাম বিরোধীরা বহুজাতিক বাহিনী নিয়ে মাঠে নেমে মুসলিম রাষ্ট্র গুলোর উপর হামলা সহ বিশ্বের বিভিন্নস্থানের বসবাসকারী মুসলমানদের উপর চালাচ্ছে র্নিমম জুলুম নির্যাতন ও অত্যাচার।  মূলত বাস্তবতায় চিত্র কিন্তু তার উল্টো । 

ইসলাম বিদ্বেষীদের পরিকল্পিত ধারাবাহিক সেই অপচেষ্টার বাস্তব চিত্রই হচ্ছে বিশ্বের অন্যতম শক্তিশালী মুসলিম রাষ্ট্রগুলোতে বহু জাতিক বাহিনীর পরিকল্পিত হামলা সহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে বসবাসকারী ইসলাম ধর্মের মুসলমানদের উপর সদ্য সংগঠিত নানা নির্যাতন অত্যাচার নিপীড়ন সহ লোমহর্সক নিঃসংস্ব  হত্যাকান্ডের  ঘটনাগুলো।

বিশ্বের অন্যতম শক্তিশালী রাষ্ট্র ইরাক,ইরান,সিরিয়া, ফিলিস্তিনি,কুয়েত,ইয়েমেন,সুদান ইত্যাদী রাষ্ট্রগুলোতে বহুজাতিক বাহিনীর পরিকল্পিত হামলারপর এইতো কিছুদিন আগে ঘটে যাওয়া আমাদের পাশ্ববর্তী রাষ্ট্র বার্মা’য় অবস্থানরত ইসলাম ধর্মের মুসলমানদের উপর অত্যাচার, নির্যাতন, নিপীড়ন ও লোমহর্সক নির্মম হত্যাকান্ডের ঘটনার পরপরই নিউজিল্যান্ডের মসজিদে নামাজরতবস্থায় ইসলাম ধর্মের মুসলমানদের গুলিকরে হত্যাকান্ডের পরপরই আমাদের পাশ্ববর্তী বন্ধুরাষ্ট্র হিসেবে আক্ষায়িত ভারতের ভিবিন্ন প্রদেশে উগ্রবাদী সনাতন ধর্মের লোকদের কতৃক মুসলমানদের উপর চলে অমানবিক নির্যাতন  হত্যা সহ মসজিদে মসজিদে হামলার রেশ কাটতে না কাটতেই শুরুহয় ভারতের কাশ্মিরের মুসলিমদের উপর নির্মম নির্যাতন ও লোমহর্সক  হত্যাকান্ডের  ঘটনা গুলো।

ইসলাম বিদ্বেষীরা যে,কারণে বা উদ্দেশেই পবিত্র ধর্ম ইসলামকে ধবংষ সহ বিশ্বের বিভিন্নদেশে বসবাসরত   এই ধর্ম  অনুসারীদের (মুসলমানদের) উপর নির্যাতন চালাচ্ছে তাদের সে উদ্দেশ্যই তাদের জন্য কাল হয়ে দাঁড়াবে একদিন । কারণ ইসলাম ধর্মের পবিত্র গ্রন্থ আল কোরআনই উল্লেখ রয়েছে।

সৃষ্টির সর্বশ্রষ্ট্রা মহান আল্লাহপাক রাব্বুল আল আমিনই বলে দিয়িছেন যে দুনীয়াতে এমন একটা সময় আসবে যখন পৃথিবীতে অবস্থানরত মুসলমানদের উপর চলবে দমন,পিড়ন,যুলুম, অত্যাচার ও নির্যাতন। পবিত্র আল কোরআনের অবমাননা হবে,মসজিদে হামলা হবে।

মহান আল্লাহপাক রাব্বুল আল আমিন কতৃক প্রেরিত সৃষ্টি কুলের সেরা মানব মহানবী হযরত মুহাম্মদ মোস্তফা (সঃ) এর উম্মত ও অনুসারীদের উপর সবচেয়ে বেশী চলবে নির্যাতন অত্যাচারের ঘটনা। কিন্তু হাজারো কোটি চেষ্টাকরে ইসলাম বিদ্বেষীরা সফল হতে পারবে না।

মহান আল্লাহ্ পাক রাব্বুল আল আমিন কতৃক অহির মাধ্যমে তার বন্ধু সৃষ্টি কুলের সেরা মানব মহানবী হযরত মুহাম্মদ মোস্তফা (সঃ) কাছে প্রেরিত পবিত্র গ্রন্থ আল কোর আনপাকের সে সকল বাণী ইনশা আল্লাহ্ বাস্তবায়িত হতে চলছে।

আমার বলা হচ্ছে যে খানে খোদ আল্লাহ্ পাক রাব্বুল আল আমিন বলেছেন একদিন ইসলামমে আওতাভূক্ত হবে সমগ্র পৃথিবী এবং শুধু মাত্রই মুসলমানদেই হবে বিজয় এবং ইসলাম বিদ্বেষীদের সকল কার্যক্রমই তাদের জন্য কাল হয়ে দাঁড়াবে সে অর্থে মহান আল্লাহ্ পাকের সেই বাণী বাস্তবায়ণ হতে চলছে।

পৃথিবীতে ইসলাম ধর্মই যে শান্তির ধর্ম এবং এই ধর্মের বিরোধীদের অপপ্রচারকারীদের সকল কার্যক্রম ও প্রচেষ্টা বিপোরীত দিকে যাবে তার বাস্তব স¦াক্ষীই হচ্ছে নিউজিল্যান্ডে মসজিদে হামলার ঘটনাটি। ইসলাম বিদ্বেষী মানুষরুপী এক শয়তান মসজিদে হামলা করে নামাজরত মুসুল্লীদের গুলি করে র্নিমম হত্যাকান্ডেরপর প্রায় শতাধিক ইমানদার মুসলমানের প্রাণ গেলেও সেখানে দিন দিন মুসলমানদের সংখ্যা বাড়ছে।

ইসলাম ধর্মকে শান্তির ধর্ম বিশ্বাসকরে অন্যান্নর্ধমালম্বীরা তাদের জন্ম ধর্ম ত্যাগ করে পবিত্র ইসলাম ধর্ম গ্রহন করে মুসলমান হচ্ছে। শুধু নিউজিল্যান্ডে নয় বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিভিন্নস্থানের অনেক মানুষই তাদের জন্ম ধর্ম ত্যাগকরে ইসলামকে শান্তির ধর্ম হিসেবে বেছে নিচ্ছে । আর এইভাবেই দিন দিন ইসলাম ধর্মের প্রতি মানুষের আগ্রহ বাড়বে। ইসলাম বিদ্বেষীরা পবিত্র ধর্ম ইসলাম গ্রহন করে মুসলমান হবে।

এই ভাবেই একদিন মুসলমানদের হবে বিজয় ইসলাম বিদ্বেষীদের হবে পরাজয়। পৃথিবী যেমন বাস্তব সত্য মহান আল্লাহ পাকের সেই পবিত্র কোর আনের বাণীও চীর সত্য কারণ সেই নবী রাসুলদের আমল থেকে শূরু করে আজ অবদি মুসলিমদের সাথে অবৈধ লড়াই করে কে ই বা পেরেছে ? আর কে ই বা পারবে ? একদিন মুসলিমদেরই হবে চীর বিজয় পবিত্র আল কোরআন যার বাস্তব স্বাক্ষী কয়।

সিদ্ধিরগঞ্জে দুই ছাত্রকে বলাৎকারের অভিযোগে শিক্ষক পুলিশের জালে

দ্যা বাংলা এক্সপ্রেস ডটকম: সিদ্ধিরগঞ্জে দুই মাদ্রাসা ছাত্রকে বলাৎকারের ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষক শরিফুল ইসলাম ইব্রাহীমকে (২৭) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার বিকালে গ্রেফতারকৃত...