Sunday, September 27, 2020
প্রচ্ছদ লিড প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছেন: ডিআইজি

প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছেন: ডিআইজি

নারায়নগঞ্জ জেলার ট্রাফিক কাজে আরো উন্নয়নের লক্ষ্যে ই-ট্রাফিকিং কার্যক্রম  এর শুভ উদ্বোধন করে নারায়নগঞ্জ জেলা পুলিশ আয়োজনে ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখা হাসিনার নির্দেশ।

রবিবার (১ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২টায় নারায়নগঞ্জ রায়ফেল ক্লাবে ই-ট্রাফিকিং এর শুভ অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হয়।

ই-ট্রাফিকিং উদ্বোধন অনুষ্ঠানটি নারায়নগঞ্জ পুলিশ সুপার হারুন অএ রশিদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ডিআইজি ঢাকা রেঞ্জ বাংলাদেশ পুলিশ ঢাকা বিপিএম (বার) পিপিএম (বার) হাবিবুর রহমান বলেন,আমাদের আজকের ই-ট্রাফিকিং প্রোগ্রাম যেটি একটি ডিজিটিলাইজিং প্রোগ্রাম।

আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ২০০৮ সালে ঘোষণা দিয়ে ছিলেন তিনি ক্ষমতায় আসলে বাংলাদেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশে রুপান্তরিত করবেন। তার উদ্যোগেই বাংলাদেশের প্রতিটি ইয়নিয়নে ডিজিটেলাইজিং কাজ হচ্ছে।

বর্তমান বাংলাদেশে ১৬কোটি মানুষের মধ্যে ১৩ কোটি মানুষের হাতেই তিনি মোবাইল ফোন দিয়েছেন। এর মধ্যে যদি আপনারা দেখেন ১৫ বছরের বয়সের বেশি ভাগ মানুষ ইন্টারনেট ব্যবহার করে পাকিস্তানে ১৬% মানুষ,আমেরিকাতে ৭৯% মানুষ আর বাংলাদেশে ৮৮%মানুষ। তাহলে আপনারা ভাবেন বাংলাদেশ কতটা ডিজিটাল দেশে পরিনত হয়েছে আমেরিকার তুলনায়।

৭১ বিধ্বস্ত বাংলাকে সোনার বাংলায় গড়ে তুলতে স্বপ্ন দেখেছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। ৩ বছরের মাথায় বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারকে হত্যা করেছিলো।৭১ এর পরিকল্পনা প্রায় ৩০ বছরে বাস্তবায়িত হয়নি। তিনি চেয়ে ছিলেন প্রতিটি সেক্টরে উন্নয়ন। তার কন্যা ক্ষমতায় আসার পর বঙ্গবন্ধুর পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছেন।

আজকে আমি বলবো কিছু কিছু ব্যক্তি আমেরিকা থেকে ভালো আছেন কারন আশেপাশে অনেক দেশ যেমন ভারতের তুলনায় বাংলাদেশ ভালো অবস্থায় আছে।

এর কারন প্রধানমন্ত্রীর ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তুলছে তাই।আপনারা ইউনিয়ন, পৌরসভায় যান ডিজিটাল পর্চা পাবেন।৯৯৯ কল দিয়ে সব রকম সেবা পাচ্ছেন।

তিনি নারায়নগঞ্জ সম্পর্কে আরো বলেন,বর্তমান নারায়নগঞ্জ জেলায় আপনারা পেয়েছেন একজন দক্ষ পুলিশ সুপার।যে আসার ফলে আপনাদের নারায়নগঞ্জ জেলায় হকার্স,ভূমি দখলদার,চাঁদাবাজ,সন্ত্রাসী ও মাদক মুক্ত করার লক্ষ্যে কাজ করছে।এমনি তিনি তার মোবাইল নাম্বার দিয়ে দেছেন আপনারা যেকোন সমস্যায় তার সাথে যোগাযোগ করে সাহায্য পান।

নারায়নগঞ্জ জেলায় পুলিশ সুপার ও নারায়নগঞ্জ জেলা প্রশাসক এক হয়ে ই-ট্রাফিকিং এর কাজ হাতে নেন তাহলে ৭দিনের ভিতরেই হয়ে যাবে।আর আপনাদের সুবিধার জন্যই নারায়নগঞ্জ জেলায় ই-ট্রাফিকিং চালু করা হচ্ছে এবং ইউ ক্যাশের সংখ্যাও বৃদ্ধি করা হবে।তাছাড়া নারায়নগঞ্জ জেলাতেও মেট্রো সিটি হবে। আপনারা আইনের প্রতি শ্রদ্ধা করে কাজ করেন তাহলে নারায়নগঞ্জকে সুশৃঙ্খল ও ভদ্র শহর হিসেবে গড়ে উঠবে।

ই-ট্রাফিকিং কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠানের সভাপতি পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ বলেন,নারায়নগঞ্জের বায়তুল আমান জামে মসজিদ থেকেই ভাষা আন্দোলন থেকে সকল প্রকার আন্দোলনের সূত্রপাত ঘটে।আর নারায়নগঞ্জে কাজ করে নিজেকে ধন্য মনে করি।

আজকে পহেলা সেপ্টেম্বর আজ থেকে নতুন করে কাজ শুরু করছি। আমরা মাদক,সন্ত্রাস,চাঁদাবাজি,ভূমিদূস্য বিরুদ্ধে কাজ করবো বাংলাদেশের উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে কাজ করবো।

তার জন্য প্রতিটি কর্মীদের এগিয়ে আসতে হবে। আমরা সেবার মানসিকতার জন্য এসেছি রাজনীতি করতে আসিনি। নারায়নগঞ্জ জেলায় আর ৭ খুন ৬খুন ত্বকী হত্যার মতো আর খুন হবে না। আপনাদের সেবাই পুলিশের দরজা সব সময় খুলা যেকোন সমস্যায় আমরা আছি।

ই-ট্রাফিকিং শুভ উদ্বোধনি অনুষ্ঠানটি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(গোয়েন্দা)সুবাস চন্দ্র সাহা ও শরীফ মোহাম্মদ আরিফ মিহিরের সঞ্চালনায় আরো উপস্থিত ছিলেন নারায়নগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোঃ জসিম উদ্দীন, নারায়নগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মোঃ আব্দুল হাই, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ওসিই ও ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক লিমিটেড মোঃ শওকত জামিল,

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ট্রাফিক) সালেহ উদ্দীন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নূরে আলম, নারায়নগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি ফজলুল হক রোমন রেজা, সভাপতি  এড.মাহাবুবুর রহমান মাসুম, চেম্বার অব কমার্স চেয়ারম্যান খালেদ হায়দার খান কাজল, নারায়নগঞ্জ ট্রাক কার্ভাড ভ্যান মালিক পরিষদ সাধারন সম্পাদক ও কাউন্সিলর শফি উদ্দীন প্রধান, কাউন্সিলর হান্নান প্রমূখ।