প্রচ্ছদ শহর সিদ্ধিরগঞ্জের মাদক ব্যবসায়ী জয়নব অধরা

সিদ্ধিরগঞ্জের মাদক ব্যবসায়ী জয়নব অধরা

সিদ্ধিরগঞ্জের চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ী জয়নব ওরফে ডিসকু জয়নবের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে বিপাকে রয়েছেন স্থানীয়রা। প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় থেকে জয়নব ও তার সহযোগীরা প্রকাশ্যেই মাদক বিক্রিসহ এলাকায় অপরাধের রাম রাজত্ব কায়েম করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে।

জানাগেছে, সিদ্ধিরগঞ্জের ৪নং ওয়ার্ডের উত্তর আজিবপুর বাগানবাড়ী এলাকার মো: আলমের স্ত্রী জয়নব স্থানীয় পর্যায়ের শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী। এলাকার লেডি ডন জয়নবের অধীনে প্রায় ২৮জন মাদক ব্যবসায়ী রয়েছে। গত ১৫ অক্টোবর সন্ধ্যায় এলাকাবাসী জয়নবের সহযোগী সাকিব ও জয়নবের পুত্র মুসাকে মাদকসহ আটক করে এলাকাবাসী।

এসময় পুলিশকে খবর দিলে মুসা পালিয়ে যায়। তবে সাকিবকে ইয়াবাসহ আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে এলাকাবাসী। এঘটনায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় মুসাকে পলাতক দেখিয়ে একটি মামলা হয়। এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে যারা মাদকসহ ব্যবসায়ীদের আটক করে পুলিশে দিয়েছে তাদের বিভিন্ন ভাবে হুমকি দিয়ে আসছে। তার হুমকিতে স্থানীয় অনেকেই বিপাকে রয়েছেন।

তাই নিরাপত্তা চেয়ে গত ১৬ অক্টোবর রাতে নাসিক ৪নং ওয়ার্ডের উত্তর আজিবপুর বাগানবাড়ী এলাকার মৃত জামাল উদ্দিনের ছেলে নাছির উদ্দিন সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করেছে। সাধারন ডায়েরীতে নাছির উদ্দিন উল্লেখ করেছেন, গত ১৫ অক্টোর সন্ধ্যায় এলাকাবাসী সাকিব নামে এক মাদক ব্যবসায়ীকে ইয়াবাসহ আটক করে থানা পুলিশে সোপর্দ করে।

পরে দিন ১৬ অক্টোবর রাত ১০ টায় একই এলাকার মো: আলমের স্ত্রী জয়নব ওই মাদক ব্যবসায়ীর পক্ষ নিয়ে বাগানবাড়ী জামে মসজিদের সামনে আমাকে উপস্থিত লোকজনের সামনে অশ্লীল ভাষায় গালি গালাজ করে এবং আমাকে জেলের ভাত খাওয়াইবে বলে হুমকি দেয়। স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, পুশিলের বেশ কয়েকজন সদস্যদের সাথে সুসম্পর্ক রেখে প্রকাশ্যেই এলাকায় মাদক ব্যবসা করে আসছে।

জয়নবের বাড়ি ও বাড়ির আশেপাশে গলি সিসি ক্যামেরা দ্বারা মনিটরিং করা হয়। তাই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা তার বাড়ির সামনে গেলেই সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে আগেই সতর্ক হয়ে যান। স্থানীয় এক ভোক্তভোগী জানান, এলাকার দুর্ধর্ষ মাদক ব্যবসায়ী হল জয়নব। তার বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়ায় উল্টো পুলিশ দিয়েই আমাদের নানা ভাবে হয়রানি করা হয়েছে। আমরা এলাকাবাসী এই মাদক ব্যবসায়ীর কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছি। এব্যাপারে পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন স্থানীয়রা।

এ ব্যাপারে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: কামরুল ফারুক জানায়, বিষয়টি সম্পর্কে খোঁজ খবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মসজিদে বিস্ফোরণে দগ্ধে মৃত্যর সংখ্যা দাড়ালো ৩৪

দ্যা বাংলা এক্সপ্রেস ডটকমঃ তল্লা মসজিদে বিস্ফোরণে দগ্ধ হওয়া আরো একজন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে। এনিয়ে মৃত্যর সংখ্যা দাড়ালো ৩৪ জনে।
error: Content is protected !!