প্রচ্ছদ শহরতলী কাশিপুরে ক’জন লোক আওয়ামীলীগ করে: বিএম সফিকুল

কাশিপুরে ক’জন লোক আওয়ামীলীগ করে: বিএম সফিকুল

কাশিপুর ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডের আওয়ামীলীগের নবগঠিত কমিটির পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার ( ২৯ নভেম্বর )  বিকেল ৩টায় যুবলীগ নেতা আলী আহমেদ রাজু প্রধানের বাড়ি সংলগ্ন বালুর মাঠে এ পরিচিতি সভাটি অনুষ্ঠিত হয়।

কাশিপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি দুলাল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ মো.সামসুল হক। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক বিএম সফিকুল ইসলাম সফি,বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মো.আবুল কাইউম,কৃষকলীগের সভাপতি মো.আবু হানিফ,সাবেক সহ-সভাপতি এমএ মতিন সরদার।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক মো.মহিউদ্দিন মাহি,৭ নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারন সম্পাদক আলহাজ আলী আহমেদ রাজু প্রধানসহ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ৯টি ওয়ার্ডের কয়েক শতাধিক নেতাকর্মী।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বলেন, ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ মো.সামসুল হক কাশিপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি দুলাল হোসেন কর্তৃক গঠিত প্রতিটি ওয়ার্ডে কমিটি শতভাগ বৈধ। ইউনিয়নের সভাপতি হচ্ছে মো.দুলাল হোসেন। তিনি দলীয় গঠনতন্ত্র অনুযায়ীই প্রতিটি ওয়ার্ড কমিটি দিয়েছেন এটা নিয়ে দ্বিমত পোষর করার প্রয়োজন নেই। আমরা বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার রাজনীতি করি যারা সবসময় দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী কমিটির অনুমোদন দেন।

বিশেষ অতিথি ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক বিএম সফিকুল ইসলাম সফি ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি এম.সাইফুল্লাহ বাদলকে উদ্দেশ্যে করে বলেন, এখানে নেতাকর্মীরা আপনার সাথে অভিমান করেছে কিন্তু আপনি তাদের অভিমান ভাঙ্গাতে আসেন নি। আমি অনুরোধ করবো আপনি তাদের অভিমান ভেঙ্গে বুকে জড়িয়ে নিবেন।

তিনি আরও বলেন, এখানে কোন ভাইয়ের বা বাদলের আওয়ামীলীগ গঠন করা হলে আমরা বরদাস্ত করতে নিবো না। রাজনীতিতে দেশ ও দেশের সাধারন মানুষ মায়ের মতোই ভাবতে হবে কিন্তু ব্যক্তির ভাবলে চলবেনা। ২০০১ সালের পরে নারায়ণগঞ্জে তথা কাশিপুরে আওয়ামীলীগের হাল ধরার মত কেউ ছিলো।

এখানে ছিলো বিএনপি-জামাতের ঘাটি কিন্তু এখন দেখি এখানে সবাই আওয়ামীলীগ। বাহ কি চমৎকার। ভালো কিন্তু বিএনপির লোক দিয়ে নয় দলের ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতাকর্মী দিয়ে কাশিপুরে আওয়ামীলীগ চলবে কোন অনুপ্রবেশকারী দিয়ে নয়। আমরা কোন লম্পট শ্রেনীর লোক দলে চাইনা।

কাশিপুরে কতজন লোক আওয়ামীলীগ করে তা আমি এবং আমরা ভালো করেই চিনি। নীতির সাথে বেঈমানী করা ব্যক্তির সাথে রাজনীতি করা চলে না। দুলালের দেয়া কমিটিই শতভাগ বৈধ। ৭ ডিসেম্বরের কাউন্সিলে কাশিপুর ইউনিয়নের দুলালদেরকে মাঠে দেখতে না পাওয়া গেলে কিভাবে কাউন্সিল সম্পন্ন হবে তা দেখার বিষয়।

পরিচিতি সভায় আরো বক্তব্যে রাখেন ফতুল্লা থানা কৃষকলীগের সভাপতি মো.আবু হানিফসহ ৯টি ওয়ার্ডের নবগঠিত কমিটির সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকবৃন্দ।

অনুষ্ঠানের সভাপতি কাশিপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মো.দুলাল হোসেন বলেন,দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী আমরা ৯টি ওয়ার্ড কমিটি গঠন করেছি যেখানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান,প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং সাংসদ শামীম ওসমানের পরীক্ষিত ও ত্যাগী নেতৃবৃন্দরা রয়েছে।

আমরা কোন বিএনপি-জামাতের লোক দিয়ে কমিটি গঠন করিনি। আমাদের প্রতিটি নেতাকর্মীদের মাঝে রয়েছে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ। আমরা সকলেই ভয়ভীতির উর্ধ্বে থেকেই দলীয় কার্যক্রম চালিয়ে যাবো।

উক্ত কমিটি গঠন অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন,আওয়ামীলীগ নেতা মো.শামসুল ইসলাম, ফতুল্লা থানা সহ-সভাপতি এমএ আউয়াল,সাবেক সহ-সভাপতি এমএ মতিন মরদার,ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সহ-সাধারন সম্পাদক বিএম সফিউল্লাহ সফি,

জেলা আওয়ামীলীগের উপ দপ্তর বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব,ফতুল্লা থানা কৃষকলীগের সভাপতি মো.আবু হানিফ,ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সদস্য এনায়েত হোসেন খোরশেদ,কাশিপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মোশারফ হোসেন রাজা মিয়াসহ আওয়ামীলীগের অনেক নেতৃবৃন্দ।

অনুষ্ঠানে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে পুর্নাঙ্গ কমিটি কাশিপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের নিকট জমা দেয়ার অনুরোধ করে  সভার সমাপ্তি হয়েছিলো।

লুৎফা টাওয়ারের সেই সুমন কারাগারে

জামাই আদরে কোর্টে পাঠানোর অভিযোগ ওসির বিরুদ্ধে নগরীর লুৎফা টাওয়ারের মালিকের ছেলে লুৎফর রহমান সুমনকে...
Shares